-->
Type Here to Get Search Results !

what is computer virus? কম্পিউটার ভাইরাস কী?

কম্পিউটার ভাইরাস কী ? (Computer Virus):


কম্পিউটার ভাইরাস এক প্রকার ক্ষতিকারক প্রোগ্রাম বাহিরে উৎস থেকে কম্পিউটার মেমোরিতে প্রবেশ করে মেমোরিতে গোপনে বিস্তারিত লাভ করে মূল্যবান তথ্য নষ্ট করে এবং কম্পিউটার বিকল করে দেয় । ভাইরাস হল এমন একটি ধ্বংসাত্মক বা অনিষ্টকারী প্রোগ্রাম,যা নিজে নিজেকে অন্য সফটওয়্যার বা প্রোগ্রামে কপি করতে পারে এবং সেই প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার অনিষ্ট সাধন করে । যে প্রোগ্রামগুলি ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হয় সেগুলি ভাইরাসের হয়ে অন্যান্য ও অসংক্রমিত প্রোগ্রামগুলিতে সংক্রমণ ঘটায়।।

কম্পিউটার পরিভাষায় ভাইরাস(VIRUS)শব্দটি ভাঙলে পাওয়া যায় - ভাইটাল ইনফর্মেশন রিসোর্সেস আন্ডার সিজ (Vital Information Resources Under Seize)অর্থাৎ গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের উৎসগুলি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে । প্রখ্যাত গবেষক ‘ফ্রেড কোহেন’ ভাইরাস নামকরণ করেন । প্রথম যে ভাইরাসটি পাওয়া যায় তার নাম ছিল - ক্র্রিপার (Creeper)। ভারতবর্ষে 1990-এর জুন মাসে সর্বপ্রথম যে ভাইরাসটি আবিষ্কৃত হয় তার নাম ছিল ‘Happy Birthday Joshi’EIK Cloner হল সর্বপ্রথম ভাইরাস যা পারসোনাল কম্পিউটারে আঘাত হানে।।

ভাইরাস ছড়ানোর মাধ্যম :




  • বাইরে হার্ডডিস্ক,ফ্লপিডিস্ক,সিডি,ডিভিডি,পেনড্রাইভ ইত্যাদি ডিস্কের মাধ্যমে প্রোগ্রম বা ডেটা আদান-প্রদানের মাধ্যমে ভাইরাস ছড়ায়।


  • ইন্টারনেট ও ই-মেলের মাধ্যমে ফাইল ডাউনলোডের সময়।
  • নেটওয়ার্কভুক্ত এক কম্পিউটারের সাথে অন্য কম্পিউটারের অথবা সার্ভারের প্রোগ্রাম অথবা ডেটা আদান-প্রদানের মাধ্যমে।
  • পাইরেটেড (নকল) সফটওয়্যার ব্যবহারের মাধ্যমে।

ভাইরাসের প্রকারভেদ (Types of Virus)

সারাবিশ্বের প্রতিনিয়ত নতুন নতুন ভাইরাস সৃষ্টি হচ্ছে । ক্ষতির প্রক্য়া অনুযায়ী নানাধরনের ভাইরাসের সন্ধান পাওয়া যায় । এগুলির মধ্যে কয়েকটি সম্বন্ধে আলোচনা করা হল-
1.বুট ভাইরাস (Boot Virus):
এই ধরনের ভাইরাসগুলি ফ্লপি বা হার্ড ডিস্কের এর বুট সেন্টারকে আক্রমণ করে, বুট সেন্টারস্থিত মাস্টার বুট প্রোগ্রামটিকে নষ্ট করে দেয়। এরফলে সিস্টেমটিকে বুট হতে বাধা দেয়।উদাহরণ : Friday13,চেরনোবিল (CIH),Stone Virus,Disk Killer,Polybootb ইত্যাদি । প্রথম বুট সেক্টর ভাইরাসের নাম হল Brain ।
2. ফাইল বা প্রোগ্রাম ভাইরাস (File or Program Virus):
এই ভাইরাসগুলো কম্পিউটারের সফটওয়্যার এর সিস্টেম ফাইল যেমন- .exe, .com, .sys ইত্যাদি ফাইলগুলোর নষ্ট করে। উদাহরণ : Cascade, Sunday, Acid, Trojon ইত্যাদি।
3. ফ্যাট ভাইরাস (FAT Virus):
এই ভাইরাসগুলো ডিক্স মধ্যস্থ File Allocation Table(FAT) কে আক্রান্ত করে ডিরেক্টরীর ভেতরের কোন ফাইলের তথ্য বা পুরো ডিরেক্টরীর সমস্ত ফাইল নষ্ট করে দেয়। উদাহরণ- Link Virus.
4. রেসিডেন্ট ভাইরাস (Resident virus):
এই ভাইরাস গুলি কম্পিউটারের প্রধান মেমরী RAM কে আক্রমণ করে সেখানে স্থায়ীভাবে বাস করে,মেমোরির দখল নেয়, ফাইল Corrupt করে দেয় এবং সিস্টেমকে কাজ করা বাধা দেয়। এর ফলস্বরূপ ফাইল খোলা ,বন্ধ করা ,কপি করা, Rename করার কাজ বাধাপ্রাপ্ত হয়। এই ধরনের কয়েকটি ভাইরাস উদাহরণ হল – CML,Rendex,MrkLunky ইত্যাদি।
5. ম্যাক্রো ভাইরাস (Macro virus):
যে সকল অ্যাপ্লিকেশন বা প্রোগ্রাম ফাইলগুলির মধ্যে ম্যাক্রো (Macro)বর্তমানে এই ভাইরাস সেগুলির কে আক্রমণ করে। ম্যাক্রো ভাইরাস দ্বারা উক্ত প্রোগ্রামগুলি সংক্রান্ত হলে সেগুলির কাজে বিঘ্ন ঘটায় বা ফাইলগুলি Corrupted নষ্ট হয়ে যায় । উদাহরণ – Y2K, Relax, W97M, DVM ইত্যাদি।

Tags

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.
'

Top Post Ad

Below Post Ad

Ads Section